Home Second Lead আলু আমদানি শুরু, বাজার নিম্নমুখী

আলু আমদানি শুরু, বাজার নিম্নমুখী

হিলি স্থল বন্দরে আলুর চালান নিয়ে ট্রাক প্রবেশ করছে।

ঢাকা: আলু আমদানি শুরু হয়েছে। হিলি এবং সোনা মসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে বৃহস্পতিবার প্রথমবারের মত আলুর চালান এসেছে। মঙ্গলবার থেকে তিন দিনে এক লাখ সাত হাজার টন আলু আমদানির অনুমোদন দিয়েছে কৃষি মন্ত্রণালয়।

বিজনেসটুডে২৪ প্রতিনিধি

ঢাকা: আলু আমদানি শুরু হয়েছে। হিলি এবং সোনা মসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে বৃহস্পতিবার প্রথমবারের মত আলুর চালান এসেছে। মঙ্গলবার থেকে তিন দিনে এক লাখ সাত হাজার টন আলু আমদানির অনুমোদন দিয়েছে কৃষি মন্ত্রণালয়। আমদানিকৃত আলু কেজি ৩০ টাকা করে বিক্রি হবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

প্রথমদিনে প্রায় ৭৭ টন আলু বিভিন্ন বন্দর থেকে খালাস হয়েছে বলে সরকারি সূত্রে জানা গেছে। ভারতের বিভিন্ন রাজ্য থেকে আলু আমদানি হচ্ছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রতি মেট্রিক টন আলু আমদানিতে কস্টিং ১৩০ থেকে ১৪০ মার্কিন ডলার। আমদানিতে ৩৩ শতাংশ শুল্ক রয়েছে।

হিলি থেকে পাওয়া সংবাদে জানা গেছে, আমদানি করা আলু আসার সংবাদে বাজারে দাম নিম্নমুখী।  বড় জাতের আলু ৫ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে ৪৫ টাকা কেজি আর  ছোট জাতের আলু ৬ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা দরে। আলু আমদানির খবরে মোকামগুলোতেও আলুর দাম কমেছে।

বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে প্রথম চালানে ভারতীয় দুটি ট্রাক আলু নিয়ে হিলি স্থলবন্দরে প্রবেশ করে। আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান মেসার্স খান ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী আবু হাসনাত রনি জানালেন, সব খরচসহ  খুচরা পর্যায়ে ৩০ টাকা কেজিতে এই আলু বিক্রি সম্ভব হবে।

হিলি স্থলবন্দরের উদ্ভিদ সংগনিরোধ কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, এপর্যন্ত বন্দর দিয়ে ২৯ জন আমদানিকারক সাড়ে ১৮ হাজার মেট্রিক টন আলু আমদানির অনুমতি পেয়েছেন। প্রথম ধাপে ১৫ হাজার ২০০ মেট্রিকটন আলু আমদানি হবে এ বন্দর দিয়ে।

আলু এসেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের সোনা মসজিদ স্থল বন্দর দিয়েও।  আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান গোর ইন্টারন্যাশনালের প্রতিনিধি সালাহউদ্দিন বলেন, আমাদের দুই ট্রাক আলু সোনা মসজিদ বন্দরে এসে পৌঁছেছে। আমদানির অনুমতি পাওয়া আরহাম নিটেক্সের ব্যবস্থাপক আবু বকর সিদ্দিক বলেন, আমরা আমদানির প্রক্রিয়া শুরু করেছি।  বর্তমান বাজার পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করে আমদানি শুরু করব।

কৃষি মন্ত্রণালয়েরি হিসাবে বাংলাদেশে বছরে আলুর চাহিদা আনুমানিক ৮০ লাখ টন। এর বিপরীতে গত মওসুমে উৎপাদিত হয়েছে ১ কোটি ১১ লাখ টন। রপ্তানি হয়েছে ১৩ হাজার টন।

প্রতিবেশী ভারতের খুচরা বাজারে আলুর কেজি ২০ রুপি। আর রাজধানীর  বাজারে আলুর দর  ইতিহাসে সর্বোচ্চ। প্রতিকেজি ৬০ টাকা থেকে ৮০ টাকা।